Wednesday, October 31, 2012

নার্সারিতে রোজগার

নার্সারিতে রোজগারগাছ চাষ একটি লাভজনক পেশা। শহরে বাড়ির ছাদেও করতে পারেন নার্সারি। এ জন্য চাই আগ্রহ আর পরিশ্রম করার মানসিকতা। অন্য কাজ করেও নার্সারি গড়ে তোলা যায়। বন্যামুক্ত উঁচু জায়গা নার্সারি করার জন্য উপযুক্ত। সাধারণত বেলে দোআঁশ বা দোআঁশ মাটি গাছ উৎপাদনের জন্য উপযোগী। জমিতে পানি দেয়ার ব্যবস্থা থাকতে হবে। বর্ষাকালে নার্সারি করার উপযুক্ত সময়। নার্সারির জন্য প্রথমে মাটি তৈরি করতে হবে। দেড় থেকে দুই বিঘা জমির জন্য তিন থেকে চার ট্রাক মাটির সঙ্গে এক ট্রাক গোবর মিশিয়ে পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখতে হবে এক মাস। তাতে মাটি হবে গাছ লাগানোর উপযুক্ত। তার আগে ভালো জাতের মাতৃগাছ নির্বাচন করে টবে কিংবা মাটিতে আলাদাভাবে রোপণ করে প্রয়োজনমতো গ্রাফটিং, কাটিং বা লেয়ারিং করে চারা উৎপাদন করতে হবে। চারা লাগাতে হবে পলিব্যাগে। চারা লাগানোর জন্য সাধারণত পলিব্যাগ ব্যবহার করা হয়। ফুল, ফল, কাঠ, ঔষধি ও সৌন্দর্যবর্ধনকারী সব ধরনের গাছই নার্সারিতে উৎপন্ন করতে হয়। তবে অঞ্চলভেদে গাছের চাহিদা ভিন্ন ভিন্ন হয়, যে অঞ্চলে যে গাছ ভালো উৎপন্ন হয়, নার্সারিতে সেই গাছই বেশি উৎপাদন করতে হয়। সঠিকভাবে চারা উৎপাদন নার্সারি শুরুর প্রথম এবং গুরুত্বপূর্ণ কাজ। মাতৃগাছ থেকে গ্রাফটিং, কাটিং, লেয়ারিং বা বীজ থেকে চারা উৎপাদন করা হয়। ফুল, ফল ও কিছু কিছু সৌন্দর্যবর্ধনকারী গাছ উৎপাদন করা হয় কলম ও গ্রাফটিং পদ্ধতিতে। কাটিং পদ্ধতিতেও উৎপাদন করা হয় কিছু ফুলগাছের চারা। ঔষধি গাছ উৎপাদনে বীজ ও পার্শ্ব শিকড় পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। আর প্রায় সব ধরনের কাঠ গাছের চারাই উৎপাদিত হয় বীজ থেকে। এক হাজার ৫০০ থেকে এক হাজার ৬০০ বর্গফুটের ছাদে পূর্ণাঙ্গ একটা নার্সারি করা সম্ভব। বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহের উদ্যানতত্ত্ব বিভাগে সারা বছর গ্রাফটিং, কাটিং, লেয়ারিং, ফলগাছ ব্যবস্থাপনা, আইটিএম ফল সংগ্রহোত্তর ব্যবস্থাপনা এবং ফল প্রক্রিয়াজাতসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা রয়েছে। যে কেউ চাইলেই তিন দিন, সাত দিন, ২১ দিন, এক মাস বা তিন মাস মেয়াদি এসব প্রশিক্ষণ নিয়ে শুরু করতে পারেন নার্সারি তৈরির কাজ। যোগাযোগ-উদ্যানতত্ত্ব বিভাগ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিংহ।
তানজিনা আফরোজ

No comments:

Post a Comment