Wednesday, February 20, 2013

চাকরির ইন্টারভিউয়ের টিপস

চাকরির ইন্টারভিউয়ের টিপসমৌখিক পরীক্ষা বা চাকরির সাক্ষাৎকারে খুব সাধারণ কিছু প্রশ্ন সবাইকেই করা হয়ে থাকে। এসব চিরাচরিত প্রশ্নগুলোর উত্তরের ধরনের উপরেও অনেকটাই নির্ভর করে আপনি চাকরিটি বাগাতে পারছেন কি না। তাই এসব উত্তরে সতর্ক হোন। সাধারণ এসব প্রশ্নের উত্তরের জন্যই কিছু টিপস দেয়া হলো এই লেখায়।
চাকরি বদলাতে চান কেন?
‘আমার আগের বস ভালো ছিল না। অফিসে কাজের পরিবেশও ছিল খারাপ। কাজ করার মতো ভালো পরিবেশ ছিল না ওখানে’ এ ধরনের উত্তর খুব একটা সাহায্য করবে না আপনাকে। সব সময় ইতিবাচক উত্তর দিন, বিশেষ করে আপনার লক্ষ্যের কথাটা জানিয়ে দিন স্পষ্ট করে। এটা চাই না, সেটা চাই না বলা যাবে না। জানাতে হবে কেন নতুনটি চান। আপনি যে অবস্থানে রয়েছেন, তার চেয়ে ভালো প্রতিষ্ঠানে যেতে চাওয়ার আকাক্সক্ষার কথাটি জানিয়ে দিন। আর নিজের কর্মদক্ষতা ও চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠানের উন্নতির জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ নিতে চাওয়ার ইচ্ছের কথাও বলতে হবে তাদের।
কোন কোন ক্ষেত্রে আপনি বেশি শক্তিশালী?
এই প্রশ্নের উত্তর অনেকভাবেই হতে পারে। তবে মূল কথা হচ্ছে, উত্তর দিতে হবে ইতিবাচকভাবে। কেউ কিছু বললে শুনে যাওয়ার অভ্যাস আছে বা ভালো অভিনয় করতে পারি এ ধরনের উত্তর দিলে হবে না। যে পদের চাকরির জন্য মৌখিক পরীক্ষা বা সাক্ষাৎকার দিতে এসেছেন, সেই কাজে সহায়ক হতে পারে, এ ধরনের কয়েকটি গুণাবলির কথা বলতে পারলে ভালো হয়। যে কোনো বিষয়কে ভালোভাবে অনুধাবন করা, পরিস্থিতি সহজে বুঝতে পারা, দ্রুত কোনো বিষয় আয়ত্ত করে নেয়া এসব গুণাবলি হতে পারে আপনার এমন শক্তিশালী দিক যেগুলো চাকরিদাতাকে ইমপ্রেস করতে পারে। তবে খেয়াল রাখবেন এমন সব গুণাবলির কথা তুলে ধরতে, যেগুলো আপনার প্রার্থিত চাকরিতে সফল হতে ভূমিকা রাখবে। এ ক্ষেত্রে অবশ্য খেয়াল রাখবেন, নিজের গুণাবলির কথা বলতে গিয়ে আবার খুব বেশি নিজের প্রশংসা করা যাবে না এবং নিজের গুণের জন্য অহংকার প্রকাশ করা যাবে না কোনোভাবেই।
আপনার দুর্বল দিক কোনটি?
কোনো মানুষই পরিপূর্ণ নয়। প্রতিটি মানুষেরই কিছু দুর্বল দিক থাকতে পারে। তাই এই প্রশ্নে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। বরং নিজের দুর্বল দিকগুলোকে সঠিকভাবে তুলে ধরা এবং সেগুলো কাটিয়ে উঠতে নিজের প্রচেষ্টার কথাটি জানানোর চেষ্টা করবেন। এমন কোনো দুর্বলতার কথা জানাবেন না, যে দুর্বলতা কোনো প্রতিষ্ঠানের জন্য ভালো ফল বয়ে নিয়ে আসে না। সময়ানুবর্তিতার অভাব, দলগত কাজে অনীহা, ডেডলাইন ভুলে যাওয়া, অলসতা প্রভৃতি নিজের মধ্যে থাকলেও তুলে ধরবেন না। বরং ছোটখাটো কোনো দুর্বল দিক তুলে ধরুন এবং এটি দূর করতে যে আপনি চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন, সে বিষয়টিও জানিয়ে দিন। তাহলে দুর্বল দিকটি আর দুর্বলতা হয়ে থাকবে না আপনার জন্য।     আহসান আলী

No comments:

Post a Comment